অনেক দপ্তরে ঘুরলেও শেষ পর্যন্ত চাকরি হয়নি দিবা রায়ের

Share the post

 

 

 

 

পরিবার নিয়ে সুন্দরভাবেই দিন কাটছিল দিবা রায়ের। কিন্তু মেঘনা নদীর থাবায় নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায় বাড়ি। হয়ে পড়েন ভূমিহীন। কিন্তু চরম কষ্টের মধ্যে পড়েলেখা চালিয়ে গেছেন শিক্ষার্থী দিবা রায়। স্বপ্ন ছিল একটি সরকারি চাকরির। কিন্তু সেই চাকরি আর হলো না। ভূমিহীন হওয়ায় তার চাকরি হয়নি। অনেক দপ্তরে ঘুরলেও শেষ পর্যন্ত চাকরি হয়নি দিবা রায়ের।

চট্টগ্রামের ওমরগণি এমইএস কলেজের শিক্ষার্থী দিবা রায় (২১)। তিনি চট্টগ্রামের সন্দ্বীপের আজিমপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা বিপ্লব রায় ও শিপ্রা দম্পতির বড় মেয়ে। দিবা রায় ও তার একমাত্র ছোট ভাই দেবু রায় দীপ্ত’র জন্ম ও বেড়ে ওঠা চট্টগ্রাম শহরের ২নং গেইটস্থ নাসিরাবাদ এলাকায়। ২০ বছর আগে ভিটেমাটি নদীগর্ভে বিলীন হলে শহরে চলে আসেন বিপ্লব রায় ও শিপ্রা দম্পতি।

 

অসুস্থ মা শিপ্রা রায় ও একটি ওষুধ কোম্পানিতে স্বল্প বেতনে চাকরি করা বাবা বিপ্লব রায়ের আর্থিক টানাপোড়েন ঘোচাতে বড় সন্তান হিসেবে পরিবারের পাশে দাঁড়াতে চেয়েছিলেন দিবা রায়। পড়াশোনা শেষ করে বড় সরকারি কর্মকর্তা হওয়ার স্বপ্ন থাকলেও এইচএসসি অধ্যয়নকালেই প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়েছেন একটা ছোট্ট চাকরির। কিছুতেই যেন মিলছিল না চাকরি নামের সোনার হরিণ। এরই মধ্যে পুলিশের কনস্টেবল পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়। বুকভরা আশা নিয়ে সেখানে আবেদন করেন দিবা রায়।

আবেদনের পর ২০১৯ সালের ১ জুলাই চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ লাইনে অনুষ্ঠিত ট্রেনিং রিক্রুট কনস্টেবল (নারী) পদে শারীরিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন দিবা। পরদিন ২ জুলাই লিখিত পরীক্ষায়ও উত্তীর্ণ হন তিনি। যথারীতি ৬ জুলাই মৌখিক পরীক্ষায়ও পাস করেন। সর্বশেষ ১০ জুলাই মেডিকেল টেস্টে অংশগ্রহণ করে ১৪ জুলাই প্রকাশিত মেডিকেল টেস্টের রিপোর্টে ‘ট্রেনিং রিক্রুট কনস্টেবল’ পদের জন্য যোগ্য বলে নির্বাচিত হয়েছিলেন দিবা রায়।

পুলিশ ভেরিফিকেশনে ‘ভূমিহীন’ বলে উল্লেখ থাকায় কনস্টেবল পদের জন্য অযোগ্য বলে ঘোষণা করা হয় দিবা রায়কে। পরে বাবা বিপ্লব রায়ের সন্দ্বীপ উপজেলাস্থ আদি বাড়িটি নদীগর্ভে বিলীন হওয়ার সত্যতার স্বপক্ষে ১৩নং আজিমপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান প্রত্যয়নপত্র নিয়োগ সংশ্লিষ্টদের দেখালেও কারও কানে যেনে ঢোকেনি।

রোববার (১২ ডিসেম্বর) বেলা সাড়ে ১০ টার দিকে দিবা রায় আরটিভি নিউজকে বলেন, ২০১৯ সালে পুলিশে কনস্টেবল পদে চাকরির আবেদন করি। আবেদনের পর সব পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হই। কিন্তু শেষে বলা হয় আমি (দিবা রায়) ভূমিহীন হওয়ায় আমার চাকরি হবে না। এরপর আমি সেসময়ের পুলিশ ডিআইজি মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী স্যারের কাছে আবেদন করি। কিন্তু তাতেও কোনো কাজ হয়নি। আমি দেশের নাগরিক হওয়া সত্ত্বেও আমার চাকরি হয়নি। আমি ভূমিহীন এটা আমার অপরাধ বললেন তিনি।

এর আগে গতকাল তিনি তার ফেসবুকে একটা স্ট্যাটাস দিয়ে জানান, সরকারি চাকরি করাটা সবার স্বপ্ন, সেটা হোক ছোট বা বড় যেকোনো পদে। সেই স্বপ্ন চোখে নিয়েই ২০১৯-এর দিকে আমিও পুলিশের নিয়োগ পেয়ে ছুটে যাই। তারপর হাজার হাজার ছেলে-মেয়ের মাঝ থেকে আমিও সব পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করে উত্তীর্ণ হই। কিন্তু শেষ দিন এসে, যেদিন ফুলের শুভেচ্ছা জানানো হয় যারা সফলভাবে চাকরির জন্য উত্তীর্ণ হয় তাদের, সেদিনি এসে আমি জানতে পারি আমার নাম বাতিল করা হয়।

কারণ, জানতে চাইলে আমাকে ভূমিহীন বলে অযোগ্য ঘোষণা করেন। খুব ভেঙে পড়েছিলাম, খুব কেঁদেছিলাম। মনে হয়েছিল আমার স্বপ্ন যেন এক নিমিষেই শেষ করে দিল তারা। আমার চাকরি হওয়ার পরও আমাকে আমার স্বপ্ন পূরণ করতে দেয়নি একজন এসপি স্যার। উনাকে আমার একটাই প্রশ্ন, আমার আপরাধ কী ছিল?

অন্যজনের চাকরি হয়েছে আমার কেন হয়নি, আমার একটাই ভুল ছিল আমি সরলমনে কিছু বুঝতে না পেরে, আমি আমার গ্রামের বাড়ির ঠিকানা উল্লেখ করিনি, আমাকে আমার আশপাশে থাকা প্রশাসনিক কর্মীরা একটাবারও বলেনি যে কাগজে কলমে আমার কী লিখতে হবে, আমি তাদের কাছে জানতে চাইলে তারা আমাকে বলেন যেইখানে থাকেন সেটাই লিখে দিন হবে। তাই বলে আমার চাকরি কেড়ে নিবে আমার কাছ থেকে, আমি তবুও থেমে থাকেনি। আমাকে আমার শুভাকাঙ্ক্ষী একজন স্যার সহযোগিতা করেছেন, আজ নাম বলব না উনার। সময় হলে বলব। আমি কি করিনি এই চাকরির জন্য?

ঢাকা হেডকোয়ার্টার আইজিপি স্যারের নিকটেও গেছিলাম, যখন আমাদের শ্রদ্ধেয় জাবেদ পাটোয়ারী স্যার আইজিপি পদে ছিলেন। চিঠি প্রেরণ করি, সেটা গ্রহণও হয়, কিন্তু এখনও পর্যন্ত কেনো উত্তর আসেনি? কেন অন্যদের চাকরি হচ্ছে, যাদের যোগ্যতা নেই তাদেরও হচ্ছে, আমার যোগ্যতাই আমি পেরেছি কিন্তু আমার কেন হয়নি? কেন তারা আমার সঙ্গে অন্যায়টা করল, এটাই আমার প্রশ্ন? তারা আমার সঙ্গে অন্যায় করেছে। যেইখানে আমি আমার সব ধরনের কাগজপত্র তাদের নিকট প্রেরণ করেছিলাম। তাই এখন আমি লড়ব আমার অধিকার আদায়ের জন্য কারণ আমার যোগ্যতায় আমি উত্তীর্ণ হয়েছি। আমি স্বচ্ছ নিয়োগ পেয়েছিলাম, তাহলে কেন হয়নি আমার চাকরি? আমি এর প্রতিদান না পাওয়া পর্যন্ত চুপ করে বসে থাকব না। এতটা দিন চুপ করে বসে ছিলাম, কবে এর উত্তর আসবে সেই আশায়। কিন্তু আর নয়, আমি এর জবাব চাই। আমার একটাই আবেদন, আমি আমার চাকরিটা ফিরে পেতে চাই।

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Releated

চকরিয়া যুবলীগের সভাপতি ও তার ছোট ভাইকে মামলায় দেওয়ায় মানববন্ধন

Share the post

Share the postফয়সাল আলম সাগর,বিশেষ প্রতিনিধি : তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে চকরিয়া উপজেলা যুবলীগের সভাপতিকে মামলায় দিয়েছে প্রতিপক্ষের লোকজন। সেই মামলা থেকে রক্ষা পায়নি দীর্ঘদিন ধরে মরনব্যাধী রোগ ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে বাড়িত পড়ে থাকা তার এক সহোদরও। কোন তদন্ত ছাড়াই চকরিয়া থানার ওসি প্রতিপক্ষের সাথে হাত মিলিয়ে এ যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা নিয়েছেন বলে অভিযোগ […]

এবার সিরিয়া থেকে ইসরায়েলে হামলা

Share the post

Share the post প্রকাশ : ১১ অক্টোবর ২০২৩, ১৯:০৪ আপডেট : ১১ অক্টোবর ২০২৩, ১৯:১৩ লেবাননের পর এবার প্রতিবেশী সিরিয়া থেকেও ইসরায়েলি ভূখণ্ডে রকেট হামলা করা হয়েছে। এই হামলার জবাবে ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর সদস্যরা সিরিয়া সীমান্তের ভেতরে কামান ও মর্টারের গোলা নিক্ষেপ করেছে। সিরিয়া থেকে ছোড়া গোলা ইসরায়েলি ভূখণ্ডের উন্মুক্ত স্থানে আঘাত হানার তথ্য স্বীকার […]